বিকাশ প্রতারনায় জড়িত কলেজছাত্রীকে ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ

জুলাই ০৭ ২০১৮, ২২:৫৮

ষ্টাফ রিপোর্টার : মৌলভীবাজারে বিকাশ এজেন্টের সাথে প্রতারণার অভিযোগে গত ৫ জুলাই সন্ধায় জনতার হাতে আটক ও পুলিশে সোপর্দকৃত হেপী ওরফে মাহমুদা নামীয় যুবতীকে ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ।
জানা গেছে- চৌমোহনাস্থ ম্যানেজার ষ্টল এর বিপরীতে অবস্থিত জননী টেলিকম নামীয় বিকাশ এজেন্টের কাছে এসে ওই যুবতী একটি বিকাশ একাউন্ট নম্বর দেয় এবং ওই নম্বরে ৮ হাজার ৮শ টাকা পাঠাতে বলে। বিকাশ এজেন্ট যুবতীর দেয়া নম্বরটি রেজিষ্টারে লিখে টাকা দিতে বললে যুবতী টাকা দিতে নানা টালবাহানা ও কথা কাটাকাটি শুরু করে। এসময় সেখানে লোকজন জড়ো হতে থাকলে একপর্যায়ে যুবতী কেটে পড়ার চেষ্টা চালালে উপস্থিত জনতা তাকে আটক করে পুলিশে খবর দেন। পরে পুলিশ এসে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।
বিকাশ এজেন্ট জননী টেলিকম এর রঞ্জিত জানায়- হিজাব পরিহিত মুখঢাকা যুবতীটি এসে ০১৬৪০-০৫৮৭৬৭ নম্বরটি দেয় এবং এতে ৮ হাজার ৮শ টাকা পাঠাতে বলে। আমি নম্বরটি রেজিষ্টারে লিখে তার কাছে টাকা চাইলে সে টাকা দিতে টালবাহানা ও আমার সাথে কথা কাটাকাটি শুরু করে। এসময় লোকজন জড়ো হতে থাকলে যুবতীটি কেটে পড়ার চেষ্টা চালালে উপস্থিত জনতা তাকে আটক করে পুলিশে খবর দেন। পরে পুলিশ এসে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।
প্রায়ই এভাবে মহিলারা এসে বিকাশ করার নামে প্রতারণা করে টাকা হাতিয়ে নেয়। মৌলভীবাজার মডেল থানার এসআই রইছ জানান- আটককৃত তরুনীকে ওই রাতেই মৌলভীবাজার সরকারী মহিলা কলেজের এক শিক্ষকের জিম্মায় ছেড়ে দেয়া হয়েছে। খোজ নিয়ে জানা গেছে- ওই যুবতী মৌলভীবাজার সরকারী মহিলা কলেজের ছাত্রী। সে কলেজের হোষ্টেলে থেকে লেখাপড়া করছে। সে জুড়ী উপজেলার একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক সহকারী শিক্ষকের কন্যা।

  •