মৌলভীবাজারে সাংবাদিকদের দেয়া হয়নি নির্বাচনী পরিচয়পত্র

ডিসেম্বর ২৭ ২০১৮, ২৩:২৯

নিজস্ব প্রতিনিধি :  একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সংবাদ সংগ্রহ ও পেশাগত দায়িত্ব পালনের সুবিধার্থে নির্বাচন কমিশনের সাংবাদিক পরিচয়পত্র জেলায় বেশ কিছু সাংবাদিকদের দেননি জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা। এর মধ্যে রয়েছেন দেশের বহুল প্রচারিত প্রথম সারির কয়েকটি জাতীয় দৈনিক ও দর্শকপ্রিয় টেলিভিশনের সংবাদকর্মী। জানা যায় জেলায় সাংবাদিকতায় তৎপর নয় এমন অনেককেই নির্বাচন কমিশনের পাস কার্ড দেয়া হয়েছে। এ ছাড়াও ভূইফোড় নামসর্বস্ব ও স্থানীয় কয়েকটি অনিয়মিত সাপ্তাহিক পত্রিকা থেকে ৪/৫জন করে নির্বাচনী পাস কার্ড দেয়া হয়। দীর্ঘদিন থেকে বিদেশে অবস্থান করছেন এমন কয়েক জনের নামেও ইস্যু করা হয়েছে পাস কার্ড। এক ব্যাক্তির নামে একাধিক পাস কার্ড তৈরীরও অভিযোগ উঠেছে।এনিয়ে মৌলভীবাজার প্রেসক্লাবের সদস্যসহ জেলায় কর্মরত সাংবাদিকদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। জানা যায় নির্বাচন কমিশনের নীতিমালা অনুযায়ী সাংবাদিকরা পাস কার্ডের জন্য রিটার্নিং কর্মকর্তা বরাবর আবেদন করেন। নির্বাচন কমিশন সচিবালয় জনসংযোগ অধিশাখার পত্রের ৩নং ক্রমিকে উল্লেখ করা হয়েছে কতজন স্থানীয় সংবাদিকদের পরিচয়পত্র দেয়া যায় তা স্থানীয় প্রেসক্লাব বা সাংবাদিক নেতৃবৃন্দের সাথে আলোচনা করে পরিচয়পত্র প্রদানের কথা উল্লেখ করা হয়। তবে এ বিষয়ে প্রেসক্লাব বা সাংবাদিক নেতৃবৃন্দের সাথে আলোচনা না করে রির্টানিং অফিসার এ সিদ্ধান্ত নেয়ায় ২৬ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় মৌলভীবাজার প্রেসক্লাবে এক জরুরী সভা হয়। ওই সভায় রিটার্নিং কর্মকর্তার এমন আচরনের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়। এবিষয়ে একাধিক সংবাদকর্মী বলেন সাংবাদিক পরিচয়পত্র না দেয়ার বিষয়ে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি সন্তুষ্টজনক কোনো উত্তর দিতে পারেননি। এছাড়াও খোঁজ নিয়ে জানা যায় জেলার বিভিন্ন উপজেলা পর্যায়ে সাংবাদিকদেরও চাহিদা অনুযায়ি পরিচয়পত্র দেয়া হয়নি। সাংবাদিক নেতারা বলেন অবাধ, সুষ্ট ও নিরপেক্ষ নির্বাচন ও পেশাগত দ্বায়িত্ব পালনের জন্য সাংবাদিকদের পরিচয়পত্র জরুরী। তারা অনতি বিলম্বে সাংবাদিকদের পাসকার্ড দিয়ে নির্বাচনী কাজে সহযোগিতা করার সুযোগ দানের জোর দাবি জানান। কোন কারন ছাড়া পাসকার্ড সব সাংবাদিকদের না দেওয়া হলে প্রয়োজনে মৌলভীবাজার জেলায় কর্মরত সাংবাদিকরা নির্বাচন পর্যবেক্ষণ ও সংবাদ পরিবেশন বর্জন করবেন।

  •