• ২৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ১৬ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ , ১৯শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

খুলনার পাবলিক লাইব্রেরীতে অনুষ্ঠিত হলো “অবরুদ্ধ সময়ের কবিতা” এর ৩য় আসর

admin
প্রকাশিত এপ্রিল ৪, ২০১৯
খুলনার পাবলিক লাইব্রেরীতে  অনুষ্ঠিত হলো “অবরুদ্ধ সময়ের কবিতা” এর ৩য় আসর

বিশেষ প্রতিনিধিঃ অবরুদ্ধ সময়ের কবিতা ৩য় আসরটি হয়ে গেলো গত ৩০ মার্চ শনিবার বিকালে খুলনার শতাব্দীপ্রাচীন উমেশচন্দ্র পাবলিক লাইবেরিতে। সারাদেশে আমাদের বন্ধুদের হিরন্ময় নীবরতাকে উপেক্ষা করে আমাদের কোন কোন বন্ধু অবরুদ্ধ সময়ের অচলায়নতন ভাঙার ডাকে সাড়া দিয়ে ভয়, শংকা আর দূরত্বকে জয় করে মিলিত হয়েছিলেন খুলনায়। বয়সের বাধাকে ডিঙিয়ে ঢাকা থেকে এসেছেন কবি গীতিকার হাসান ফকরী, রংপুর থেকে কবি চিনু কবীর, শ্রীমঙ্গল থেকে কবি জাবেদ ভূঁইয়া, ময়মনসিংহ থেকে কবি আশিক আকবর, হাসান জামিল, কবি মাহমুদুল শান্ত, কবি সৌরভ মাহমুদ, তানিয়া সুলতানা, নেত্রকোণা থেকে কবি অনুপ সাদি, কবি দোলন প্রভা, বরিশাল থেকে কবি মিজান মজুমদার, মাগুরা থেকে শিকদার ওয়ালিউজ্জামান, যশোর থেকে কবি চিন্তক বেনজিন খান, কবি ইবাইস আমান, ঢাকা থেকে কবি পলিয়ার ওয়াহিদ, কবি মিলু হাসান, আতিফ অনিক, নারায়ণগঞ্জ থেকে কবি রঘু অভিজিৎ রায়, কবি রইস মুকুল, কবি জিয়াবুল ইবন, ঠাকুরগাও থেকে এসেছিলেন কবি অজয় কুমার রায়। খুলনার বন্ধুরা তো ছিলেনই। বিশেষ করে অনিন্দ্য অবনী, রুহুল আমিন, উনাদের কথা কৃতজ্ঞচিত্তে স্মরণ করতে হয়। কবি শামীম আক্তার লিটুসহ খুলনার প্রায় ৭০ জন কবি এই আসরে সংহতি জানিয়ে কবিতা পাঠ করেন। খুলনার আসরটি আমাদেরকে নতুন করে ভাবতে শিখিয়েছে যে, আমাদের থেমে যাওয়ার উপায় নেই । খুলনা ঘোষণায় বলা যায় খুলনার মতো আরো আরো প্রান্তের, আরো আরো দিকের কবিরা এই অবরুদ্ধতা, এই অচলায়তন ভাঙার জন্য মুখিয়ে আছে। আমরা কি তাদের সাথে একদিনের জন্যও মিলিত হবো না? নিশ্চয়ই আমরা প্রত্যেকের দ্বারে কড়া নাড়বো। খুলনার আসর থেকে আমরা এই আত্মপ্রত্যয় লাভ করেছি।