পর্যটকদের পদচারণায় মুখরিত মৌলভীবাজার

জুন ১০ ২০১৯, ১৮:৫৫

স্টাফ রিপোর্টারঃ মৌলভীবাজার ঈদের প্রথম দিন থেকে শুরু করে এখনও পর্যটকদের উপচে পরা ঢল নেমেছে মৌলভীবাজার জেলার পর্যটন এলাকাগুলোতে, রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা পর্যটকেরা মাধবকুন্ড,গগনটিলা,মাধবপুর লেইক, লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান ও বিশেষ করে মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল উপজেলার দর্শনীয় স্থানগুলোতে। গতকালও দেখাযায় সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত পর্যটকদের পদভারে মুখরিত হয়ে উঠে বিভিন্ন চা-বাগান, লাউয়া ছড়া জাতীয় উদ্যান, , বধ্যভূমি একাত্তর, সিতেশ দেবের চিড়িয়াখানাসহ বিভিন্ন স্থান। পর্যটন স্পটগুলো ঘুরে দেখা যায়, শ্রীমঙ্গলের বিভিন্ন চা-বাগান, লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান, বধ্যভূমি ৭১, বিটিআরআই, বাংলাদেশ বণ্যপ্রাণি সেবা ফাউন্ডেশন, নীলকণ্ঠের ১০ লেয়ার চা, চা-কন্যার ভাস্কর্য, টি-রিসোর্ট মিউজিয়াম, বাইক্কাবিল, মণিপুরী পাড়ার হস্তশিল্পের দোকানসহ বিভিন্ন স্থানে পর্যটকদের ভিড়। ঈদের ছুটির কারণে কোনো হোটেল, রিসোর্ট ও কটেজে রুম খালি নেই। সবগুলোর কক্ষ আগাম বুকিং হয়ে আছে। আগামী কয়েকদিন পর্যটকে মুখরিত থাকবে এসব হোটেল, রিসোর্ট ও কটেজ। ঢাকা থেকে মৌলভীবাজারে ঘুরতে আসা ব্যাংক কর্মকর্তা তারেক হাছান জানান, ঈদ উপলক্ষে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে এখানে ঘুরতে এসেছি। দর্শনীয় স্থানগুলো দেখা শেষে সিলেটে মাজার জিয়ারত করে ঢাকা ফিরে যাব। শ্রীমঙ্গলের সবুজ চায়ের বাগান,গগন টিলা, লাউয়াছড়াসহ বিভিন্ন জায়গা ঘুরে দেখেছি। এখানকার প্রাকৃতিক দৃশ্য যেকোনো মানুষকে বিমোহিত করে। পর্যটকরা বলেন, শ্রীমঙ্গলের পর্যটনকেন্দ্রগুলো সুন্দর হলেও এখানকার রাস্তা রাস্তাঘাটের অবস্থা খুব খারাপ। যেহেতু এখানে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা পর্যটকদের ভিড় হয়, মৌলভীবাজার কমলগঞ্জের রাস্তার অবস্থা একেবারেই খারাপ,তাই রাস্তাঘাটগুলো আরও উন্নত হওয়া দরকার। ঈদের দিন থেকে এখন পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে প্রচুর পর্যটকের আগমন এমন কি বিদেশী পর্যটকও দেখা যাচ্ছে। মৌলভীবাজার জেলায় দর্শনীয় স্থান ও ভালো মানের হোটেল-রিসোর্ট ও রেস্টুরেন্ট থাকার কারণে এই স্থানকে বেছে নিচ্ছেন পর্যটকরা। রাস্তাঘাট ও যোগাযোগ ব্যবস্থা ভাল হলে মৌলভীবাজার জেলা এক সময় পর্যটক নগরী হিসাবে প্রতিষ্টিত হবে বলে সচেতন মহল মনে করেন।

  •