• ২৮শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ১৫ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ , ১৮ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

মৌলভীবাজারে অপহৃত তরুণী পুলিশের অভিযানে উদ্ধার

admin
প্রকাশিত নভেম্বর ১৭, ২০১৯
মৌলভীবাজারে অপহৃত তরুণী পুলিশের অভিযানে উদ্ধার
 কাইয়ুম সুলতান: মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালের সামনে থেকে ভৈরবগঞ্জ বাজারে যাওয়ার পথে অপহৃত তরুণীকে ৩ ঘন্টা অভিযান চালিয়ে উদ্ধার করেছে পুলিশ। এব্যাপারে অপহৃত তরুণী লিপি আক্তার নিতেশ্বর গ্রামের তাজুল ইসলামের পুত্র কামাল মিয়াসহ অজ্ঞাত ৩ জনকে আসামী করে মৌলভীবাজার মডেল থানায় নারী শিশু আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। (মামলা নং-১৪/২০১৯) অপহরণে ব্যবহৃত গাড়ীটি(ঢাকা মেট্টো গ ১৪২৫৪৭) উদ্ধার করা হয়েছে। তবে অপহরণকারী কাউকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি। অপহৃত তরুণী নবীগঞ্জ উপজেলার রামলোহ গ্রামের সাবু মিয়ার কন্যা।
ঘটনার বিবরণে জানা যায়, গত ২দিন যাবৎ গুরুতর অসুস্থ বাবাকে নিয়ে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসা চালাচ্ছেন। শনিবার ১৬ নভেম্বর রাত দশটার দিকে মামা জহিরুল ভৈরবগঞ্জ বাজারে তাকে পাঠানোর উদ্দেশ্যে গাড়ির জন্য অপেক্ষা করছিলেন। এমন সময় একটা প্রাইভেট কার আসলে কার ড্রাইভার জানায় সে লোকাল যাত্রী নিয়ে যাচ্ছে। এ সময় গাড়ির পেছনে যাত্রী বেশে একজন বসা ছিলেন।  ভাড়া দিয়েমামা ভিকটিমকে প্রাইভেট কারে তুলে দেন। তার কিছু সময় পর মেয়েটির নাম্বার থেকে মামা জহিরুলের কাছে কল করে বলে ‘আমাকে বাঁচাও আমাকে ড্রাইভার নামিয়ে দিচ্ছেনা, আমাকে কোথায় যেন নিয়ে যাচ্ছে’। এ সময় মামাকে লাইনে রেখেই মেয়েটা বলতে থাকে ‘আল¬াহ’র দোহাই আমাকে নামিয়ে দেন, আমার আব্বা হাসপাতালে মারা যাবে যদি আমার কিছু হয়’ এর পরপর লাইন কেটে যায় এবং মেয়েটির নাম্বার বন্ধ হয়ে যায়। এব্যাপারে মামা জহিরুল ইসলাম এক সাংবাদিকের সাহায্য চাইলে ওই সাংবাদিক মধ্যরাতে বিষয়টি মৌলভীবাজার সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাশেদুল ইসলামকে জানান। তিনি বিষয়টি জেনে সঙ্গে সঙ্গে ভিকটিমের সাথে যোগাযোগ করে যাবতীয় তথ্য সংগ্রহ করেন। মধ্যরাতেই অভিযান শুরু করেন। প্রায় ৩ ঘণ্টার অভিযানে (রাত ৪টার দিকে) কমলগঞ্জ উপজেলায় দেওড়াচরা চাবাগান থেকে মেয়েটিকে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। এব্যাপারে মডেল থানার অফিসার ইনর্চাজ আলমগীর হোসেনের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, গভীর রাতে বিভিন্নভাবে অভিযান পরিচালনা করে মেয়েটিকে উদ্দার করা হয়েছে তবে ৪ জন অপহরণকারী পালিয়ে যায় তাদের ধরতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে।