• ২৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ১৬ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ , ১৯শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে নিল কর্তৃপক্ষ, মানববন্ধন কর্মসূচি স্থগিত

admin
প্রকাশিত নভেম্বর ২৪, ২০১৯
শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে নিল কর্তৃপক্ষ, মানববন্ধন কর্মসূচি স্থগিত

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ প্রায় ২৫ হাজার শিক্ষার্থী, অসংখ্য যানবাহন ও আদালত পাড়ার পথচারীদের একমাত্র রাস্তাটি ফুটপাতবিহীন থাকায় প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা। স্কুল-কলেজ ছুটি হলে যানজট লেগেই থাকে শহরের এই সড়কে। মৌলভীবাজার সরকারি কলেজের সম্মুখ থেকে পৌরজনমিলন পর্যন্ত সরু রাস্তা থাকায় দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা। তাই ” জজ কোর্টের সম্মুখে ক্যান্টিন নয়, ফুটপাত চাই” এই স্লোগানকে সামনে রেখে মৌলভীবাজার জজ কোর্টের সামনে ক্যান্টিন সরিয়ে ফুটপাত নির্মাণের দাবিতে ২৫ নভেম্বর সকাল সাড়ে ১০ টায় মানববন্ধনের ডাক দিয়েছিলো জেলার সাধারণ শিক্ষার্থীরা। ইতিমধ্যে তাদের এ দাবি মেনে নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা।

রবিবার সন্ধ্যায় ৬ ঘটিকায় জেলা আইনজীবী মিলনায়তনে পৌরমেয়র ফজলুর রহমান, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ এস এম আজাদুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ কামরেল আহমেদ চৌধুরী সাধারণ শিক্ষার্থীদের সাথে বৈঠক করেন ও জেলা জজ কোর্ট কর্তৃপক্ষ সাধারণ শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে নিয়েছেন বলে তারা জানান এবং আগামীকাল সকাল থেকে কাজ পুনরায় শুরু করার ঘোষণা দেন। কাজ শুরুর ঘোষনা দেওয়ায় আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা সোম বারের মানববন্ধন কর্মসূচি স্থগিত ঘোষণা করেন। এসময় সাধারণ শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এম এ সামাদ, শাহ ফাহিম, রুহিন আহমদ, তাকবির হোসেন, মো:সিরাজুল হাসান, এম এ কাইয়ুম সুলতান, শাওন আহমদ , আফজাল নাহিদ, পুলক রয়, মারুফ খান, তারেক, কামরুল হাসান প্রমুখ। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মোহাম্মদ আলী টিপু ও রুকন আহমদ।

উল্লেখ্য যে, গতবছর নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের সময় মৌলভীবাজার জেলা সদরে কোর্ট রোডস্ত জনমিলন কেন্দ্র থেকে মৌলভীবাজার সরকারি কলেজ পর্যন্ত ফুটপাত নির্মাণের দাবি জানিয়ে ছিলো শিক্ষার্থীরা। তাদের এ দাবি মেনে নিয়ে মৌলভীবাজার পৌর মেয়র ফজলুর রহমান কাজ শুরু করলেও জনমিলন কেন্দ্র থেকে সরকারি কলেজ পর্যন্ত রাস্তা প্রশস্তকরণ ও ফুটপাত নির্মাণের কাজটি জেলা জজ কোর্ট ক্যান্টিনের কারণে কাজটি আটকে যায়।