লাইয়ছড়ায় খাসিয়াদের বর্ষ বিদায় উদযাপন

নভেম্বর ২৬ ২০১৯, ১৬:৫৭

শ্রীমঙ্গল সংবাদদাতা: মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে চিরাচরিত প্রথায় বর্ণাঢ্য আয়োজনে উদযাপন হলো আদিবাসী খাসি (খাসিয়া) বর্ষ বিদায় “খাসি সেং কুটস্নেম” উৎসব । প্রতি বছর খাসিয়া সম্প্রদায়ের লোকজন ২৩ নভেম্বর বর্ষ বিদায়ের এই অনুষ্ঠান উদযাপন করে থাকেন। খাসি সোস্যাল কাউন্সিলের আয়োজনে শনিবার সকাল থেকে লাউয়াছড়ায় স্থানীয় ফুটবল মাঠে এ উৎসব শুরু হয়। খাসি (খাসিয়া) বর্ষ বিদায় উৎসবে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক বেগম নাজিয়া শিরিন।

মাগুরছড়া খাসিয়া পুঞ্জির হেডম্যান ও বৃহত্তর সিলেট আদিবাসী ফোরামের সহ-সভাপতি জিডিসন প্রধান সুচিয়াং-এর সভাপতিত্বে এবারের খাসি বর্ষ বিদায় অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, মৌলভীবাজার জেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মল্লিকা দে, সম্প্রীতি বাংলাদেশ এর আহবায়ক পীযুষ বন্ধ্যোপাধ্যায়, বৃহত্তর সিলেট আদিবাসী ফোরামের চেয়ারপার্সন পিডিশন প্রধান সুচিয়াং, গ্রেটার সিলেট ইন্ডিজিনাস পিপলস ফোরাম এর জেনারেল সেক্রেটারি ও খাসি সোস্যল কাউন্সিল ভাইস প্রেসিডেন্ট ফিলা পতমিসহ সিলেট বিভাগের বিভিন্ন খাসিয়া পুঞ্জির হেডম্যানবৃন্দ।

অনুষ্ঠানস্থল লাউয়াছড়া মাঠের এক প্রান্তে বাঁশের খুঁটির উপর প্রাকৃতিক পরিবেশে নারিকেল গাছের পাতায় ছাউনি দিয়ে আলোচনা সভার মঞ্চ তৈরী করা হয়। মাঠের চারপাশে তাদের নিজস্ব পণ্য সামগ্রী নিয়ে মেলায় স্টল বসে। স্টল সমুহে খাসিয়া সম্প্রদায়ের প্রয়োজনীয় সামগ্রী ছাড়াও খেলনা, খাদ্য, পোশাক ও মশলা সামগ্রী স্থান পেয়েছে।

বৃহত্তর সিলেট বিভাগের ৭০টি খাসিয়া পুঞ্জি থেকে আগত নারী-পুরুষ, শিশু কিশোররা তাদের ঐতিহ্যবাহী পোশাক পরিধান করে এসে এসব স্টল থেকে প্রয়োজনীয় সামগ্রী কিনছেন।উৎসবের মূল আকর্ষণ ছিল ঐহিত্যবাহী খাসি পোশাক পরে মেয়েদের নাচ-গান, তৈল যুক্ত একটি বাঁশে উঠে উপরে রাখা মোবাইল ফোন গ্রহন, দুটি পুকুরে বড়শী দিয়ে মাছ শিকার, তীর ধুনক খেলা, গুলতি চালানো, র‌্যাফেল ড্র ও মেলা।
২০১২ সাল থেকে মাগুরছড়া থাসিয়া পুঞ্জির ফুটবল মাঠে আনুষ্ঠানিকভাবে খাসি বর্ষ বিদায় “খাসি সেং কুটস্নেম” পালন করা হচ্ছে। ৭০টি খাসিয়া পুঞ্জির থেকে খাসি নারী পুরুষ, কিশোর- কিশোরীরা এ উৎসবে যোগ দিয়েছেন।

  •