• ২৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ১৬ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ , ১৯শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

সারা দেশে মুক্তিযুদ্ধাদের কবর একই ডিজাইনের হবে, দেখে যেনো যে কেউ চিনতে পারে এটি মুক্তিযুদ্ধার কবর-মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক

admin
প্রকাশিত জানুয়ারি ২৬, ২০২০
সারা দেশে মুক্তিযুদ্ধাদের কবর একই ডিজাইনের হবে, দেখে যেনো যে কেউ চিনতে পারে এটি মুক্তিযুদ্ধার কবর-মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক

এস.এম.সাব্বির আলম: “সারা দেশে মুক্তিযুদ্ধাদের কবর একই ডিজাইনের হবে, দেখে যেনো যে কেউ চিনতে পারে এটি মুক্তিযুদ্ধার কবর। মুজিব বর্ষে মুক্তিযুদ্ধাদের বক্তব্য রেকর্ড করে জাতীয় আর্কাইবে রাখা হবে। কেয়ামতের আগ পর্যন্তÍ নষ্ট হবে না”। মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন মৌলভীবাজার জেলার সদর উপজেলা, কুলাউড়া, কমলগঞ্জ ও শ্রীমঙ্গল উপজেলায় মুক্তিযোদ্ধা ভবন উদ্বোধন ও মতবিনিময় সভায় ২৫শে জানুয়ারি শনিবার দুপুরে এম. সাইফুর রহমান অডিটোরিয়ামে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরের মন্তব্য করেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। মন্ত্রী আরও বলেন, জিয়াউর রহমান বঙ্গবন্ধু হত্যার পরিকল্পনাকারী। বঙ্গবন্ধু হত্যাকারীদের বিচার না করার জন্য জিয়াউর রহমান আইন করেছিল। জিয়াউর রহমান রাজাকারদের দিয়েই মন্ত্রী পরিষদ গঠন করেন। মুক্তিযুদ্ধের ব্যতিক্রমি স্থান গুলো সংরক্ষিত করে রাখতে হবে। যাতে এই স্থান গুলো দেখে তরুণ প্রজন্ম মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে অনেক কিছু শিখতে পারে, গবেষকরা গবেষণা করতে পারেন। তিনি আরও বলেন, প্রতিটি সরকারি অফিসে মুক্তিযুদ্ধারা যাওয়ার পর তাদের পরিচয় পত্র দেখানো মাত্রই তাদের জন্য একটি আসন সংরক্ষিত করে রাখা হবে। মুক্তিযুদ্ধাদের চিকিৎসার জন্য প্রতিটি হাসপাতালে সরকারি ফান্ড দেয়া হয়েছে। যে সকল ডাক্তাররা মুক্তিযুদ্ধাদের চিকিৎসায় অবহেলা করবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মল্লিকা দের সভাপতিত্বে ও শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা জসীম উদ্দিন মাসুদ এর সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন,মৌলভীবাজার-৪ আসনের সংসদ সদস্য ও সাবেক চিপ হুইপ উপাধ্যক্ষ ড. মোঃ আব্দুস শহিদ, মৌলভীবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য নেছার আহমদ, মৌলভীবাজার-হবিগঞ্জ আসনের সংরক্ষিত মহিলা এমপি সৈয়দা জোহরা আলাউদ্দিন, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযুদ্ধা আজিজুর রহমান, মৌলভীবাজার পৌরসভার মেয়র ফজলুর রহমান, উপজেলা চেয়ারম্যান কামাল হোসেন, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মিসবাহুর রহমান, উপজেলা মুক্তিযুদ্ধা ভবন নির্মাণ এর প্রকল্প পরিচালক আব্দুল হাকিম ও সাবেক জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার জামাল উদ্দিন প্রমুখ। এছাড়া জেলা মুক্তিযুদ্ধা সন্তান কমান্ড, জেলা মুক্তিযুদ্ধা এবং জেলা আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ ও বিভিন্ন স্থরের সরকারি কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।