• ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ১১ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ , ১৪ই শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

মৌলভীবাজারে ভিজিডির চাল নিয়ে মেম্বার গৌছুল আজমের চালবাজিতে দিশেহারা হতদরিদ্র পিয়ারা বেগম

admin
প্রকাশিত মে ৩১, ২০২০
মৌলভীবাজারে ভিজিডির চাল নিয়ে মেম্বার গৌছুল আজমের চালবাজিতে দিশেহারা হতদরিদ্র পিয়ারা বেগম

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ মৌলভীবাজার সদর উপজেলার আখাইলকুড়া ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের মেম্বার গৌছুল আজমের ভিজিডির চাল নিয়ে চালবাজিতে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন অত্র ইউনিয়নের পালপুর গ্রামের মৃত আব্দুল কাদিরের মেয়ে স্বামী পরিত্যক্তা পিয়ারা বেগম (৪৭)। এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট  পিয়ারা বেগম  ওয়ার্ড মেম্বার গৌছুল আজমের  বিরুদ্ধে ভিজিডির চাউল আত্মসাৎ এর অভিযোগ করেন। অভিযোগ সূত্র ও সরজমিন পরিদর্শনে জানা যায়, ২০১৯ সালের জানুয়ারী মাসে ইস্যু কৃত কার্ডটি পিয়ারা বেগমকে না দিয়ে নিজের কাছে রেখে প্রতিমাসে নিজের লোক দিয়ে চাল উত্তোলন করে নিয়ে যাচ্ছেন। ইতিমধ্যে করোনার কারণে প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত সহায়তার তালিকায় পিয়ারা বেগম  তার নাম দিতে গেলে কার্ডের বিষয়টি জানতে পারেন। ভিজিডির তালিকায় নাম থাকায় তিনি প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত সহায়তা ও পাননি। সরজমিন পরিদর্শনে আরও জানা যায় পালপুর গ্রামের রমজান উল্ল্যার পুত্র দুদু মিয়ার কাছ থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার ঘর নির্মাণ করে দিতেও উৎকোচ নেন এই মেম্বার। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেকেই জানান তিনি শুধু চাল বা ঘর নয়- টিন বিতরণ, প্রেগন্যান্সি ভাতা, সেলাই মেশিন বিতরনেও দুর্নীতি করে আসছেন।

অভিযুক্ত ইউপি মেম্বার গৌছুল আজমের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান অভিযোগ গুলো মিথ্যা ও বানানো। আমি এসবের সাথে জড়িত নয়।

এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান সেলিম আহমেদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান মেম্বার গৌছুল আজমের বিরুদ্ধে অভিযোগ হয়েছে  শুনেছি,তবে আমি লিখিত অভিযোগের কোন কপি পাইনি। পরিষদের কোন মেম্বার এ ধরনের ন্যাক্কারজনক ঘটনার সাথে জড়িত থাকলে অবশ্যই শাস্তি হওয়া উচিত।

মৌলভীবাজার সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শরিফুল ইসলাম অভিযোগের  বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান ভিজিডির চাল আত্মসাৎ এর  ব্যাপারে আমার কাছে একটি অভিযোগ এসেছে। অভিযোগের ব্যাপারে  তদন্ত  করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।