বন্যপ্রাণি হত্যা করে সামাজিক মাধ্যমে উল্লাস

সেপ্টেম্বর ০৩ ২০২১, ২১:১০

ইশরাত জাহান চৌধুরীঃ  মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার বরচেগ গ্রামে একটি বন বিড়াল হত্যা করা হয়েছে। হত্যার পর হত্যাকারী সেই বনবিড়ালের ছবি সামাজিক মাধ্যমে (ফেসবুক) পোষ্ট করে উল্লাস প্রকাশ করেছেন। বিষয়টিকে খুবই অনাকাঙ্ক্ষিত ও দুঃখজনক প্রকাশ করে মামলা দায়ের করবেন বলে জানিয়েছে বনবিভাগ।

স্থানীয় সুত্র থেকে জানা যায়, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে বরচেগ গ্রামের মোঃ মোস্তফা মিয়া বিপন্ন প্রায় একটি বনবিড়াল হত্যা করেন এবং তিনি সেই ছবি ফেসবুকে প্রচার করে উল্লাস জ্ঞাপন করেন ।

হত্যাকারী হিসেবে অভিযুক্ত মো. মোস্তফা মিয়ার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, তার মামাতো ভাইয়ের ফার্মে এসে বন বিড়ালটি মোরগ খেয়ে ফেলত। এজন্য তার মামাতো ভাই পিংকু মিয়া বিড়ালটি কে হত্যা করে এবং পরে মোঃ মোস্তফা ফেসবুকে ছবি পোস্ট করে (অভিযুক্ত) তিনি নিজে হত্যা করেছেন বলেদা দাবী করেন ।

 

প্রাণি গবেষকরা জানিয়েছেন, বন বিড়াল খুবই উপকারি প্রাণি। ঢাবির প্রাণিবিদ্যা বিভাগের প্রভাষক ও বন্যপ্রাণি গবেষক মুনতাসির আকাশ জানান, এর ইংরেজি নাম Jungle Cat (বৈজ্ঞানিক নাম Felis chaus)।এরা নিশাচর। একে জংলিবিড়াল, খাগড়াবিড়াল প্রভৃতি নামেও অভিহিত করা হয়। রাতের আঁধারে এরা ছোট ছোট পাখি বা পাখির ডিম, ছানা ইত্যাদি শিকার করে খায়। এক লাফে কয়েক ফুট পর্যন্ত পৌঁছে যেতে পারে। দিনের বেলায় এরা লতাপাতাঘেরা বড় গাছের কোটরে ঘুমায়। প্রজনন মৌসুমে গাছের কোটরে দু’ থেকে চারটি ছানা প্রসব করে। আইইউসিএন বাংলাদেশ এর তথ্য মতে, প্রজাতিটি বর্তমানে প্রায় সংকটাপন্ন।

বিভাগীয় বনকর্মকর্তা রেজাউয়াল করিম চৌধুরী জানান, বন্যপ্রাণি হত্যা করা শাস্তিযোগ্য অপরাধ। কারো ক্ষতি করে থাকলে তারা তার ক্ষতিপূরণ দেন কিন্তু হত্যা করে তারা অপরাধ করেছে। বনবিড়াল হত্যাকারীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করবেন বলেও জানিয়েছেন বনকর্মকর্তা।

  •