বড়লেখায় শারীরিক বুদ্ধি প্রতিবন্ধী এক তরুণীকে জোরপূর্বক ধর্ষণের ঘটনায় গ্রেফতার ১

সেপ্টেম্বর ১৫ ২০২১, ০৩:৪৪

বড়লেখা প্রতিনিধি : মৌলভীবাজারের বড়লেখায় ১৯ বছরের শারীরিক বুদ্ধি প্রতিবন্ধী এক তরুণীকে ঘরে ডেকে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণের ঘটনায় আব্দুর রব ওরফে রবু (৪২) কে গ্রেফতার করেছে বড়লেখা থানা পুলিশ।

(১৪ সেপ্টেম্বর) মঙ্গলবার সকাল ৮ ঘটিকায় উপজেলার দক্ষিন মাইজগ্রামে ঘটনাটি ঘটে। গ্রেফতার আব্দুর রব ওরফে রবু দক্ষিণ মাইজ গ্রামের আতর আলী জরি মিয়ার ছেলে।

এই ঘটনায় তরুণীর বড় ভাই বড়লেখা থানায় মঙ্গলবার দুপুরে ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। ধর্ষণের পরই আব্দুর রব ওরফে রবু গা ডাকা দিয়েছিল। মামলার পর পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) রতন চন্দ্র দেবনাথের নেতৃত্বে,সেকেন্ড অফিসার সুব্রত কুমার দাস,এস আই ইয়াকুব হোসেন ও এস আই আবু সাইদ অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করেন।
পুলিশ ও অভিযোগ সূত্রে জানা যায়,ধর্ষণের শিকার শারীরিক বুদ্ধি প্রতিবন্ধী তরুণী মঙ্গলবার সকাল ৮টার দিকে বিবাদী আব্দুর রব ওরফে রবু বাড়িতে তার ভাবীর কাছ থেকে টাইগারবাম আনতে যায়। টাইগার বাম নিয়ে আসার পথে বিবাদী তাকে ডাকদেন, তরুণী তার ঘরে কাছে গেলে তাকে হাত ধরে ঘরের ভিতরে নিয়ে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোরপূর্বক ধর্ষন করে। রক্তাত অবস্থায় তরুণী বাড়ীতে এসে বিষয়টি তার ভাবির কাছে বলে। পরে স্হানীয় ইউপি সদস্য শামীম উদ্দিনকে বিষয়টি অবগত করেন তরুণীর ভাই। তরুণীর চিকিৎসার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎস প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট সদর হাসপাতালে রেফার্ড করেন। বর্তমানে তরুণী মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে ও,সি,সিতে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা দিন রয়েছে।

থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার মঙ্গলবার রাত ১১ টায় বলেন,শারীরিক বুদ্ধি প্রতিবন্ধী
এক তরুণীকে জোরপূর্বক ধর্ষণের ঘটনায় থানায় মামলা হয়। ধর্ষণ মামলার পরই অভিযুক্ত আব্দুর রব ওরফে রবু গা ঢাকা দিয়েছিল। অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ভিকটিম তরুণী বর্তমানে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে ও,সি,সিতে চিকিৎসা দিন রয়েছে।

  •