• ২৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ১৬ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ , ১৯শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

দুই বাংলাদেশীকে বিএসএফ পিটিয়ে বাংলাদেশের জুড়ী সীমান্তে রেখে যায়

admin
প্রকাশিত জুলাই ২৪, ২০২৩
দুই বাংলাদেশীকে বিএসএফ পিটিয়ে বাংলাদেশের জুড়ী সীমান্তে রেখে যায়

নিজস্ব প্রতিনিধি, মৌলভীবাজার: মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার কচুরগুল এলাকায় দুই বাংলাদেশীকে পিটিয়ে সীমান্তে রেখে যায় ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনী (বিএসএফ)।

২৪ জুলাই (সোমবার) সকাল ১০টার দিকে বাংলাদেশের সীমান্তে কচুরগুল এলাকা থেকে তাদের একজনকে উদ্ধার করা হয়। ওপর জনকে ১৮০১ মেইন পিলারে কাছে থেকে বিজিবির লাঠিটিলার দ্বায়িত্বে থাকা ক্যাম্প কমান্ডারের নির্দেশে বেলা ১১ টার দিকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে।

বিজিবি জানায়, গত ২২ জুলাই দুই ব্যক্তি চট্রগ্রামের রামগড় সীমান্ত হয়ে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যে প্রবেশ করে। সেখান থেকে আগরতলায় গিয়ে ট্রেনে উঠার সময় ভারতীয় পুলিশের সন্দেহ হলে তাদের আটক করে। এর পরে পুলিশ বিএসএফ এর কাছে স্থানান্তর করে। পরে বিএসএফ তাদের খুব বেশী মারধর করে। আটককৃত জাহাঙ্গীর আলীর বাড়ি কুড়িগ্রামের ভুড়িঙ্গামারী ও হৃদয় আহমদ বাড়ি খুলনা।

জাহাঙ্গীর আলী বাংলাদেশে আসে মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার দক্ষিণ কচুরগুল এলাকা দিয়ে। সেখানে সে স্থানীয় বাসিন্দাদের হাতে আটক হয়ে জানায় তার সাথের একজনকে সীমান্তে নদীতে ফেলে রেখেছে বিএসএফ। পরে বিজিবি ও স্থানীয়রা গিয়ে হৃদয় নামের ছেলেটিকে বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে ১৮০১ নং পিলারের পাশে নদী থেকে উদ্ধার করা হয়।

স্থানীয় বাসিন্দা বাবুল মিয়া বলেন, সকালে একজন অপরিচিত লোক কচুরগুল গ্রামে আসলে স্থানীয়রা তাকে আটক করে। তার পুরো শরীরজুড়ে আঘাত দেখতে পান। তার মাধ্যমে আমরা আরেকজনের খবর পাই। তাদের শরীরে যে রকম আঘাত করা হয়েছে তা অবর্ণনীয়। মানুষ মানুষকে এভাবে আঘাত করতে পারেনা।
লাঠিটিলা বিজিবির দায়িত্বে থাকা ক্যাম্প কমান্ডার সুবেদার গোলাম গাউছ জানান, সকালে স্থানীয়দের হাতে সীমান্তে অপরিচিত এক ব্যক্তি আটক হয়। পরে বিজিবি সেখানে উপস্থিত হয়ে আরেকজনকে উদ্ধার করে। দুই জনের শরীরে মারাত্বকভাবে জখমের দাগ রয়েছে। বিষয়টি আমরা বিজিবির উর্ধ্বতনদের জানিয়েছি। পরে তাদেরকে আমরা পুলিশের হেফাজতে দিয়েছি।

জুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ মোশাররফ হোসেন জানান, তাদেরকে বিজিবি প্রহরায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আছে। তাদের অবস্থার উন্নতি হলে সীমান্ত অতিক্রম করার অভিযোগে মামলা রুজু করা হবে।